War Museum at Chudanga

৫ আগস্ট চুয়াডাঙ্গার স্থানীয় শহীদ দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে চুয়াডাঙ্গার আট বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্মুখ সমরে শহীদ হন। দেশ স্বাধীনের পর আট শহীদের আত্মত্যাগকে স্মরণ করে দিবসটিকে স্থানীয় শহীদ দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৭১ সালের ৫ আগস্ট ছিল বৃহস্পতিবার। ওইদিন চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরের সীমান্তবর্তী গ্রাম বাগোয়ান-রতনপুরে পাক হানাদার বাহিনীর সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্মুখ যুদ্ধ শুরু হয়। ওই যুদ্ধে আট জন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। এরা হলেন- হাসান জামান, আবুল কাশেম, রবিউল ইসলাম, কিয়ামদ্দিন, আফাজ উদ্দীন, আলাউল ইসলাম খোকন, রওশন আলম ও খালেদ সাইফুদ্দিন আহম্মেদ তারেক। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের কিতাব হালসানার জমিতে আট শহীদের লাশ দুটি কবরে মাটিচাপা দিয়ে দাফন করা হয়। স্বাধীনতার পর ওই কবরের ওপরই নির্মাণ করা হয়েছে স্মৃতিসৌধ। যা আট কবর নামে পরিচিতি পেয়েছে। এছাড়াও এ সমস্ত শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিকে আরো স্মরনীয় করে রাখতে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার'র ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় তাদের কবরের পাশে সম্প্রতি মুক্তিযুদ্ধ সংগ্রহশালা ও অডিটোরিয়াম নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।